• E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০১৯, ০৮:৪৪ পূর্বাহ্ন



জি হিন্দুস্তান ভারতের প্রথম অ্যাঙ্করবিহীন চ্যানেল

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮
  • ৩৯ বার পঠিত
জি হিন্দুস্তান ভারতের প্রথম অ্যাঙ্করবিহীন চ্যানেল
জি হিন্দুস্তান ভারতের প্রথম অ্যাঙ্করবিহীন চ্যানেল

ভারতের প্রথম অ্যাঙ্করহীন চ্যানেল হিসেবে নতুনভাবে আত্মপ্রকাশ করেছে জি হিন্দুস্তান। বৃহস্পতিবার নিজেদের জনপ্রিয় হিন্দি খবরের চ্যানেল জি হিন্দুস্তানের রিলঞ্চ করেছে জি মিডিয়া গোষ্ঠী। ফলে এই চ্যানেলে এখন থেকে আরও কোনও অ্যাঙ্করকে দেখা যাবে না। খবর জি নিউজের।

চ্যানেলের রিলঞ্চ করে রাজ্যসভার সাংসদ ড. সুভাষ চন্দ্র বলেন, জি গোষ্ঠীর ১৩টি খবরের চ্যানেল রয়েছে। তাই আমরা এমন একটা চ্যানেলের কথা ভেবেছি যেখানে শুধুই খবর দেখা যাবে। এই চ্যানেলে ‘অখণ্ড দেশ, একটানা খবর’ থিমের ওপর কাজ করবে। তার কথায়, এই পথ ধরে ভারতের বৈচিত্রময় ঐক্যকে আরও নিবিড় বুননে বাঁধবে জি হিন্দুস্তান।

এটিকে ভারতীয় সংবাদ জগতে যুগান্তকারী উল্লেখ করে করে ড. চন্দ্র বলেন, খবরের চ্যানেল খুললেই অ্যাঙ্করের দেখা মেলে। কখনও প্রণয় রায়, কখনও বিনোদ দুয়া, রজত শর্মা ও সুধীর চৌধুরিকে আমরা টিভিতে দেখতে পাই। অ্যাঙ্কর যতই নিরপেক্ষ হোন না কেন তার ব্যক্তিগত বিশ্বাস সংবাদ পরিবেশনে প্রভাব ফেলে। সেজন্যই সংবাদ পরিবেশনে অ্যাঙ্করের ভূমিকায় ইতি টানার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা।

রাজ্যসভার সাংসদ সুভাষ চন্দ্র বলেন, এখন ক্যামেরা শুধু খবর দেখাবে। ক্যামেরা যে মিথ্যে কথা বলে না তা জানেন দর্শকরা। তাই অ্যাঙ্করের কণ্ঠের আর কোনও প্রয়োজন নেই। দর্শকের তথ্য জানার অধিকার পূরণ করবে জি হিন্দুস্তান।

ড. চন্দ্র আরও বলেন, এতোদিন ধরে ইংরেজি বলা বুদ্ধিজীবীরা দেশ চালাচ্ছেন। তারা ভুলে যান, ভারতের বয়স মাত্র ৭২ বছর, যেখানে ভারতের ইতিহাস ৬,০০০ বছরের পুরনো। ভারতের একটি স্বর্ণালী অতীত রয়েছে। কিন্তু বইয়ে সেসব জায়গা পায় না। জি হিন্দুস্তান ভারতের ইতিহাসের সেই সোনালী পাতাগুলো উলটাবে, যাতে বর্তমান প্রজন্ম নিজের দেশকে নিয়ে গর্বিত হয়। স্বর্ণালী সেই ইতিহাস থেকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে এই প্রজন্ম।

তিনি বলেন, জি হিন্দুস্তান বর্তমান প্রজন্মের সঙ্গে গৌরবময় অতীতের সেতুবন্ধ তৈরি করবে। জি হিন্দুস্তান দেখলে তাদের মনে হবে, ভারতও বিশ্বসেরা হতে পারে।

এদিকে এই চ্যানেলে সংবাদ বুলেটিন আধা ঘণ্টার পরিবর্তে ১০ মিনিটের হবে। ড. সুভাষ চন্দ্র বলেন, এই চ্যানেলে খবর পরিবেশন হবে পুরো ভারতের প্রেক্ষিতে। কোনও রাজ্যকে বঞ্চিত করবে না জি হিন্দুস্তান।

এর আগে জি মিডিয়া গোষ্ঠীর ম্যানেজিং ডিরেক্টর অশোক ভেঙ্কটরমানি বলেন, বিভিন্ন খবরের চ্যানেলে এখন খবরের চ্যানেলে খবরের থেকে বেশি মতামত গুরুত্ব পাচ্ছে। তবে দর্শকরা মতামত নয়, খবর চান। খবর দেখে দর্শকরা নিজেরাই নিজেদের মতামত তৈরি করবেন। তাদের ওপর কোনও দৃষ্টিকোণ চাপিয়ে দেয়ার দরকার নেই।

Facebook Comments



নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..